খুনের দায়ে নারায়ণগঞ্জ ও মানিকগঞ্জে ৩ জনের ফাঁসির আদেশ

Published: 2015-12-12 13:50:06

News Image

 


দুটি পৃথক মামলায় এক ব্যবসায়ীকে হত্যার দায়ে নারায়ণগঞ্জে ২ জনকে এবং স্ত্রী হত্যার দায়ে মানিকগঞ্জে ১জনের ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত । অপর এক জনের কারাদণ্ড হয়েছে যাবজ্জীবন।

সোমবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জে ব্যবসায়ী নজরুল ইসলাম হত্যা মামলার রায়ে দুজনকে মৃত্যুদণ্ড এবং একজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। নারায়ণগঞ্জ ১ নম্বর অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মামুনুর রশিদ এ রায় দেন।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি রানা ও মুসলেহউদ্দিনকে একই সাথে আড়াই লাখ টাকা করে জরিমানা করেছেন আদালত। আর যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি আমির হোসেনকে দুই লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। জরিমানার টাকা নিহত নজরুলের পরিবারকে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। রায় ঘোষণার সময় জামিনে থাকা তিন আসামিই ছিলেন অনুপস্থিত।

জানা গেছে, নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলার কলাগাছিয়া এলাকার প্রবাস থেকে ফিরে নজরুল ইসলাম স্থানীয় রানা ও মুসলেহউদ্দিনের সঙ্গে থান কাপড়ের ব্যবসা শুরু করেন। এক সময় নজরুল তাঁর ব্যবসায়িক অংশীদার রানাকে এক লাখ টাকা ধার দেন। কিন্তু রানা দীর্ঘদিন ধরে সেই টাকা ফেরত না দিয়ে নজরুলকে হয়রানি করেন। ২০১১ সালের ২২ অক্টোবর সন্ধ্যায় টাকা ফেরত দেওয়ার কথা বলে রানা ও মুসলেহউদ্দিন পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী নজরুলকে ডেকে নিয়ে শীতলক্ষ্যা নদীতে নৌকায় তোলেন। নৌকার মাঝি আমির হোসেনের সহায়তায় তাঁরা নজরুলকে হাত-পা বেঁধে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে লাশ নদীতে ফেলে দেন। পরে বন্দর থানার পুলিশ নদী থেকে তাঁর লাশ উদ্ধার করে। এ ঘটনায় নিহত নজরুলের বড় ভাই নাজমুল হক বাদী হয়ে ওই তিনজনকে আসামি করে বন্দর থানায় হত্যা মামলা করেন।

তিন আসামিই হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। এই মামলায় মোট ১৯ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়েছে। রাষ্ট্রপক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন অতিরিক্ত সরকারি কৌঁসুলি মো. আব্দুর রহিম ও আসামিপক্ষে ছিলেন ফজলুর রহমান লিটন। নিহত নজরুলের বড় ভাই ও মামলার বাদী নাজমুল হক ও ছোট ভাই জুম্মান রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করে আসামিদের দ্রুত গ্রেপ্তারের দাবি জানান।

এদিকে সোমবার দুপুরে মানিকগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক আল মাহমুদ ফায়জুল কবীর স্ত্রী শিউলী (২৬) বেগমকে হত্যার দায়ে স্বামী শফিকুল ইসলামের (৩০) মৃত্যুদণ্ডাদেশ দিয়েছেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত মো. শফিকুল ইসলাম জেলার সাটুরিয়া উপজেলার আকাশী গ্রামের মৃত তারা মিয়ার ছেলে। নিহত শিউলী বেগম নরসিংদী সদরের শ্যামতলী গ্রামের আইয়ুব আলীর মেয়ে।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, স্ত্রী শিউলিকে ২০০৭ সালের ২২ এপ্রিল সকালে পারিবারিক কলহের জের ধরে শ্বাসরোধে হত্যার পর পাশের ঘিওর উপজেলার একটি মচির ক্ষেতে লাশ ফেলে পালিয়ে যায় স্বামী শফিকুল ইসলাম। এ ঘটনায় ২০০৮ সালের ২০ মার্চ শফিকুলের বিরুদ্ধে ৩০২ ধারায় স্থানীয় গ্রামপুলিশ শচীন্দ্র নাথ কীর্তনিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। ওই বছর ৭ ডিসেম্বর পুলিশ শফিকুলকে গ্রেফতার করে। ২৫ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণের পর আদালত সোমবার দুপুরে মো. শফিকুল ইসলামের মৃত্যুদণ্ডাদেশের পাশাপাশি তাকে ২০ হাজার টাকা জরিমানাও করেন ।


 
 

Leave a Comment

 
  Please Login For Comments. Or Registration(Sign Up)